ভিপিএন কি আমাদের হ্যাকার থেকে রক্ষা করতে পারে?

ভিপিএন কি আমাদের হ্যাকার থেকে রক্ষা করতে পারে
ভিপিএন কি আমাদের হ্যাকার থেকে রক্ষা করতে পারে

ভিপিএন এর প্রধান কাজ হলো আপনার ডিভাইসের আইপি এড্রেস হাইড করে দেওয়া আপনার আইপি এড্রেস হাইড করে ভিপিএন এর সার্ভারের সাথে কানেক্ট করে দেওয়া

আপনার ডিভাইসের ভিপিএন এপ এবং ভিপিএন সার্ভারের মধ্যে কানেকশন এনক্রিপ্টেড আকারে হয়ে থাকে যাকে ভিপিএন টানেল ও বলা হয় । কারন এই ডেটা গুলো এনক্রিপ্টেড আকারে ভিপিএন সার্ভারে যায় এবং এই ডেটা গুলো শুধুমাত্র ভিপিএন সার্ভার ডিক্রিপ্ট করতে পারবে আর কেউ না , যখন আপনি কোনো ওয়েবসাইট ব্রাউজ করতে চাইবেন তখন সেই ব্রাউসিং প্রথমে আপনার ভিপিএন সার্ভারে যাবে এবং পরবর্তীতে ভিপিএন সার্ভার সেই ওয়েবসাইট আপনার ব্রাউজারে ব্রাউজ করাবে সেক্ষেত্রে আপনার আই এস পি বা ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার আপনি কোন সার্ভারে গেছেন বা কোন ব্রাউজার ইউস করছেন সেটি দেখতে পারবে না কারন তারা আপনারার আইপি দেখতে পারবে না কারন সেটি ভিপিএন পর্যন্ত সিমাবদ্ধ।

কিছু হ্যাকার আপনি যখন ওয়েবসাইটে তথ্য আদান প্রদান করছেন সেই সময় আপনার ডাটা চুরি করে থাকে যেমন আপনি কোণো পাসওয়ার্ড দিচ্ছেন কিংবা ক্রেডিট কার্ডের তথ্য দিচ্ছেন তখন ডিভাইস থেকে এই ডাটা যখন সাইটে যাচ্ছে এই পথেই তারা আপনার ডাটা চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে এই ধনের হ্যাকিংকে বলা হয় Man In the Middle Attack. কিন্তু ভিপিএন ব্যবহার এর ফলে তথ্য সরাসরি সাইটে যাচ্ছে না প্রথমে ভিপিএন সার্ভারে যাচ্ছে এবং সেই তথ্য এনক্রিপ্টেড হয়ে যাচ্ছে যার কারনে কেউ এই এনক্রিপ্টেড ডাটা ভেংগে আপনার তথ্য দেখতে পারবে না। সেক্ষেত্রে আপনার তথ্য চুরি হওয়ার সম্ভবনা অসম্ভব।

তাছারা ভিপিএন রিমোট হ্যাকিং থেকেও রক্ষা করতে পারে মুলত দূর থেকে আইপি এড্রেস এর মাধ্যমে কম্পিউটার বা ডিভাইস হ্যাক হওয়ার সভবনা থাকেই না কারন ভিপিএন ব্যবহার এর কারনে আপনার আইপি হাইড থাকে। তবে সে আপনার আইপি আগে থেকে জানলে ভিন্ন কথা

এছাড়া অনেক সময় হ্যাকার রা আপনি কোনো সাইতে ব্রাউজ করলে তারা অন্য সাইটে যাওয়ার জন্য উতসাহিত করে বা নেটওয়ার্ক ট্রাফিক সৃষ্টি করে যেনো আপনার ডিভাইস ব্যবহার করাই বিরক্তকর হয়ে উঠে বা অসম্ভব হয়ে পরে এটাও আইপি ছাড়া সহজে সম্ভব না সুতরাং ভিপিএন আপনাকে রক্ষা করবে।

এছাড়া কিছু হ্যাকার আছে যারা পাব্লিক এ ফেক ফ্রি ওয়াইফাই তৈরি করে মানুষ ফ্রি ওয়াইফাই পেয়ে চালানো শুরু করে দেয় এবং সেই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে আপনি যত ডাটা আদান প্রধান করবেন সেই ডাটা তারা নিয়ে নেয় এবং গুরুত্বপূর্ন ডাটা পেলে সেটি নিয়ে নেয় মানে আপনি হ্যাকড। কিন্তু ভিপিএন এই ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করে কারন ভিপিএন ব্যবহার করলে সেই ডাটাগুলো ইনক্রিপটেড আকারে থাকবে ফলে আপনার হ্যকড হওয়ার সম্ভবনাই নেই।

হ্যাক শুধুমাত্র এইভাবেই হয় না ম্যলয়ার ,পিসিং ,লোভনীয় বিজ্ঞাপনে পা দিলে আপনি হ্যাকড হতে পারেন কিন্তু সেক্ষেত্রে ভিপিএন আপনাকে সাহায্য করতে পারবে না সেক্ষেত্রে এন্টি ম্যলওয়্যার সফটওয়্যার আপনাকে সাহায্য করতে পারে আর লোভনীয় বিজ্ঞাপন থেকে আপনি নিজেকে নিজে রক্ষা করতে হবে ।

 

Total
0
Shares
Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous Post

স্পটিফাই কি? কেনো স্পোটিফাই এতো জনপ্রিয়!

Next Post
ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে কিছু ভুল ধারনা

ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে কিছু ভুল ধারনা

Related Posts
ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে কিছু ভুল ধারনা

ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে কিছু ভুল ধারনা

জনপ্রিয় জিনিস নিয়ে মানুষের ভুল ধারণা তৈরি হবে এটাই স্বাভাবিক ওয়ার্ডপ্রেস সেটার ব্যতিক্রম নয়। কিন্তু ওয়ার্ডপ্রেস এর মত…
বিস্তারিত

স্মার্টফোনে সেরা ১০ মেসেজিং ও কলিং এ্যপস

স্মার্টফোনের সহজলভ্যতার কারনে লোপ পেয়েছে মেসেজিং কিংবা গতানুগতিক ফোন কলের করলে চাহিদা। সেই যায়গা গুলো দখল করে নিয়েছে…
বিস্তারিত